সব পুরুষ সদস্য, পুরোনো ও কট্টরপন্থীদের নিয়ে তালেবান সরকার ঘোষণা করা হয়েছে। এটা আমার কাছে অনেক বিস্ময়ের। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে তালেবান অন্তর্বর্তী সরকারের যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল, এটা তার বরখেলাপ। মন্ত্রিসভা কোনো অর্থেই অন্তর্ভুক্তিমূলক হয়নি। আফগানিস্তানের জাতিগত বৈচিত্র্যের প্রতিফলন এখানে ঘটেনি। নতুন মন্ত্রিসভার কমপক্ষে অর্ধেক সদস্য ১৯৯৬-২০০১ তালেবান সরকারের সদস্য ছিলেন।

তালেবান মুখপাত্র এটাকে তত্ত্বাবধায়ক সরকার বলেছে। পরে বড় পরিসরে সরকার গঠন হলে অন্যদের জন্য দরজা খোলা থাকবে বলে জানিয়েছে। এটা তারা করতেও পারে। দ্বিতীয় তালেবান শাসনে তাদের নিজ দেশের জনগণ এবং বাকি বিশ্বকে দেখাতে হবে তারা পুরোনো তালেবান থেকে আলাদা। তারা যদি সংখ্যালঘু জাতি এবং নারীদের মধ্য থেকে মন্ত্রিসভায় সদস্য নিতে পারে, তবে বাকি বিশ্ব তাদের সম্পর্কে যে ধারণা পোষণ করে, সেটা বদলাতে সহায়তা করবে।



Contact
reader@banginews.com

Bangi News app আপনাকে দিবে এক অভাবনীয় অভিজ্ঞতা যা আপনি কাগজের সংবাদপত্রে পাবেন না। আপনি শুধু খবর পড়বেন তাই নয়, আপনি পঞ্চ ইন্দ্রিয় দিয়ে উপভোগও করবেন। বিশ্বাস না হলে আজই ডাউনলোড করুন। এটি সম্পূর্ণ ফ্রি।

Follow @banginews