বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, গত ২০২১ সালের ডিসেম্বরে চট্টগ্রাম বিভাগে ব্যাংকগুলোর ঋণের পরিমাণ দাঁড়ায় ২ লাখ ২৪ হাজার ৮৪ কোটি টাকা, যা ছয় বছর আগে ২০১৫ সালে ছিল ১ লাখ ১০ হাজার ৭২৬ কোটি টাকা। ফলে ৭ বছরের ব্যবধানে চট্টগ্রাম অঞ্চলে ঋণ বেড়ে প্রায় দ্বিগুণ হয়ে গেছে। এই সময়ে এত ঋণ বৃদ্ধি পাওয়াকে ‘অস্বাভাবিক’ বলে মনে করছেন ব্যাংকাররা।

জানতে চাইলে বেসরকারি খাতের মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) সৈয়দ মাহবুবুর রহমান বলেন, ‘একসময় ব্যাংকগুলোর মূল ব্যবসা ছিল চট্টগ্রামে। বড় ধাক্কা খাওয়ার পর সবাই শিক্ষা নিয়েছে। ভালো করপোরেট প্রতিষ্ঠান ছাড়া ব্যাংকগুলো এখন চট্টগ্রামের কাউকে ঋণ দিচ্ছে না। এরপরও এত ঋণ বৃদ্ধি পাওয়াটা অস্বাভাবিক।’ পাঁচ–সাতটি ব্যাংকের কারণে ওই অঞ্চলে ঋণ এত বাড়তে পারে বলে মনে করেন তিনি।

এদিকে চট্টগ্রামে সার্বিকভাবে ব্যাংক খাতের ঋণ বেড়ে দ্বিগুণ হলেও কিছু ব্যাংকের ক্ষেত্রে তা তিন গুণ হয়ে গেছে। চট্টগ্রামে সমস্যা দেখে অধিকাংশ ব্যাংক যখন হাত গুটিয়ে নিয়েছে, তখন অল্প কয়েকটি যেন আগের চেয়েও উদার হস্তে ঋণ দিয়ে যাচ্ছে। যেমন চট্টগ্রাম অঞ্চলে বেসরকারি ইসলামী ব্যাংকের দেওয়া ঋণের পরিমাণ ২০১৬ সালে ছিল ১২ হাজার ৩০৯ কোটি টাকা। তা গত বছরের শেষে বেড়ে হয়েছে ৩৭ হাজার ৮৯১ কোটি টাকা। অর্থাৎ ২০১৬ সাল–পরবর্তী পাঁচ বছরে চট্টগ্রাম বিভাগে ব্যাংকটির ঋণ বিতরণ বেড়েছে ২৫ হাজার ৫৮২ কোটি টাকা। একইভাবে ২০১৬ সালে সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেডের (এসআইবিএল) ঋণের পরিমাণ ছিল ২ হাজার ৫৬২ কোটি টাকা, যা ২০২০ সালে বেড়ে দাঁড়ায় ৬ হাজার ২৩১ কোটি টাকা। একই সময়ে এই ব্যাংকের ঋণ বিতরণ প্রায় আড়াই গুণ বেড়েছে। মালিকানা পরিবর্তন হয়ে এই দুটি ব্যাংক এখন চট্টগ্রামভিত্তিক এক শিল্পগ্রুপের হাতে রয়েছে।



Contact
reader@banginews.com

Bangi News app আপনাকে দিবে এক অভাবনীয় অভিজ্ঞতা যা আপনি কাগজের সংবাদপত্রে পাবেন না। আপনি শুধু খবর পড়বেন তাই নয়, আপনি পঞ্চ ইন্দ্রিয় দিয়ে উপভোগও করবেন। বিশ্বাস না হলে আজই ডাউনলোড করুন। এটি সম্পূর্ণ ফ্রি।

Follow @banginews