কলকাতা, ২১ নভেম্বর- রাজনীতি ছেড়ে দেব কিন্তু কোনও দিন বিজেপিতে যাব না। বারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংকে চরম বার্তা দিলেন তৃণমূলের বর্ষিয়ান সাংসদ সৌগত রায়।

শনিবার সকালে ছটপুজো উপলক্ষে নৌকায় গঙ্গা ভ্রমণের সময় তাঁর দাবি, ”শুধু শুভেন্দু অধিকারীই নয়, সৌগত রায়-সহ অন্তত ৫ জন তৃণমূল সাংসদ যে কোনও সময়ে ইস্তফা দিয়ে বিজেপিতে যোগদানের জন্য প্রস্তুত। এটা শুধুমাত্র সময়ের অপেক্ষা।” এপ্রসঙ্গে সৌগত রায়ের প্রতিক্রিয়া, “ওঁর মতো অপরিণত, বাহুবলী এবং আর্থিক দুর্নীতিতে যুক্ত লোকের বিবৃতির প্রতিক্রিয়া দিতে আমার রুচিতে বাঁধে৷ ওঁর বক্তব্যের কোনও গুরুত্ব আমার কাছে নেই৷” এরপরই তিনি বলেন, “আমি রাজনীতি ছেড়ে দেব, মরে যাব। তবু বিজেপিতে কিছুতেই যাব না। কারণ, বিজেপিকে সাম্প্রদায়িক দল বলেই আমি মনে করি। তার বিরুদ্ধে লড়াই সবসময় জারি থাকবে। উনি যা বলছেন, তা বিজেপির মিথ্যা প্রচার, গুজব উসকে দেওয়ার নীতি।”

এ দিন সকালে তৃণমূলের বিধায়ক শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে তৃণমূলের তৈরি হওয়া ‘দূরত্ব’ নিয়ে একের পর এক মন্তব্য করেন অর্জুন সিং। শুভেন্দুকে জননেতা বলে দাবি করে অর্জুন বলেন, “যেভাবে তাঁকে হেনস্থা করা হচ্ছে, তাতে এক মুহূর্ত ওনার মতো জননেতার তৃণমূলে থাকা উচিত নয়৷ যেভাবে আমাকে অপমান করা হচ্ছে, একই কায়দায় শুভেন্দু অধিকারীকে হেনস্থা করা হচ্ছে৷ একজন জননেতাকে এ ভাবে আটকানো যায় না৷ ভারতীয় জনতা পার্টিকে সবসময় তাঁকে স্বাগত৷”

এপ্রসঙ্গে সৌগত রায় বলেন, “শুভেন্দু অধিকারীকে নিয়ে কথা বলার অর্জুন সিং কে? যা বলার শুভেন্দু অধিকারী নিজে বা আমাদের দল বলবে।”

সম্প্রতি, অরাজনৈতিক একাধিক সভায় নানা দলের নাম না করে ইঙ্গিতপূর্ণ মন্তব্য করেছেন রাজ্যের শুভেন্দু অধিকারী। তারপর থেকেই তাঁর বিজেপিতে যোগদানের জল্পনা তীব্র হয়। রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ থেকে শুরু করে কেন্দ্রীয় নেতাদের অনেকেই শুভেন্দু অধিকারীরকে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে স্বাগত জানিয়েছেন।

তবে, ১৯ তারিখ রামনগরের সভা থেকে তাঁর ইঙ্গিতপূর্ন মন্তব্য, ”মুখ্যমন্ত্রী আমাকে তাড়াননি, আমিও দল ছাড়িনি।”

সূত্র: কলকাতা২৪x৭

আর/০৮:১৪/২১ নভেম্বর



Contact
reader@banginews.com

Bangi News app আপনাকে দিবে এক অভাবনীয় অভিজ্ঞতা যা আপনি কাগজের সংবাদপত্রে পাবেন না। আপনি শুধু খবর পড়বেন তাই নয়, আপনি পঞ্চ ইন্দ্রিয় দিয়ে উপভোগও করবেন। বিশ্বাস না হলে আজই ডাউনলোড করুন। এটি সম্পূর্ণ ফ্রি।

Follow @banginews