নতুন চরিত্র নিয়ে চিন্তিত ভাবনা

বর্তমান সময়ের জনপ্রিয় অভিনেত্রী আশনা হাবিব ভাবনা। নিখুঁত অভিনয় দিয়ে জয় করেছেন দর্শকদের মন। বর্তমানে বেশকিছু নাটক ও ধারাবাহিকে কাজ নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন ভাবনা। শুধু অভিনয় নয়; নাচ, কবিতা-উপন্যাস লেখা, ছবি আঁকতেও পটু এই অভিনেত্রী।

সোমবার দৈনিক ইত্তেফাকের অনলাইন ইনচার্জ জনি হকের সঞ্চালনায় টুনাইট শো লাইভে আসেন ভাবনা। এসময় বর্তমানের কাজ ও ব্যক্তি জীবনের কিছু বিষয় শেয়ার করেছেন তিনি।

অভিনয়ের পাশাপাশি ভালো ছবি আঁকেন ভাবনা। এ সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘ছবি আঁকা একটা চাহিদা সম্পন্ন কাজ। আমি যখন বাসায় ছিলাম তখন ঘুম থেকে উঠে কোন একটি ছবির কাজ শুরু করতাম সেটা রাত শেষ করতাম। ঘুমাতে যাওয়ার আগে আগে সেটা পোস্ট করে ঘুমাতে যেতাম। এমনও দিন গেছে আমি দুই-তিনটি ছবি এঁকে ফেলেছি। এখন আসলে হয়ে ওঠে না। কারণ আমার ভার্সিটির ক্লাস, শুটিং নিয়ে ব্যস্ততার কারণে অনেকদিন ছবি আঁকতে পারছি না। শেষ ছবি এঁকেছিলাম লাল মোরগের ছবি।’

বিটিভির ধারাবাহিক নাটকে অভিনয় প্রসঙ্গে ভাবনা বলেন, ‘বিটিভিতে এর আগে খণ্ড চরিত্রে অভিনয় করেছি, সেটাও বিশেষ দিবসের জন্য। কিন্তু ধারাবাহিকে এটাই আমার প্রথম। এই নাটকের নাম ‘এখানে কেউ থাকেনা’। চরিত্রটা কেমন সেটা এখন বলা যাচ্ছেনা। চরিত্রটা আসলে কি সেটা আমি এখনো জানিনা। সবে মাত্র পাণ্ডুলিপিটি পড়েছি। তবে এই সিরিয়ালের জন্য প্রত্ততি নিচ্ছি। এখানে আমার চরিত্রটা একটু ভিন্ন হবে। আমার লুক, অভিনয়ের ধরণসহ সবকিছু নিয়ে আমি খানিকটা চিন্তিত। এই চরিত্রটায় আমি নতুন। এটা এর আগে কখনো করিনি। আমার জন্য এটা অনেক চ্যালেঞ্জিং। আমি আর অনিমেষ চেষ্টা করছি চরিত্রটা কীভাবে বের করা যায়। এখানে সব গুণী অভিনেতা-অভিনেত্রীরা কাজ করছেন। ‘এখানে কেউ থাকেনা’ নিয়ে আমরা অনেক ব্যস্ত।আশাকরি ভালো করতে পারবো।’

অভিনয়, নাচ, কবিতা, উপন্যাস লেখা, ছবি আঁকা, ক্লাস- এতোকিছু করার সময় পান কীভাবে- এমন প্রশ্নে উত্তরে তিনি বলেন, ‘আমার তো মনে হয় অনেক সময়। আমার মনে হয় ইচ্ছে থাকলে সব কিছু করা যায়। চাইলে এক সাথে অনেক কিছু করা সম্ভব।’

ওয়েব সিরিজে অভিনয় প্রসঙ্গে ভাবনা বলেন, ‘আমরা ওয়েব সিরিজের সঙ্গে হয়তো অনেক পরে যুক্ত হয়েছি। অনেক দেশ কিন্তু অনেক আগেই যুক্ত হয়েছে। আমি ও জোভান প্রায় তিন বছর আগে একটি ওয়েব সিরিজ করেছি। তিন বছর আগে থেকেই কিন্তু ওয়েব সিরিজে কাজ হচ্ছে। কিন্তু করোনা ভাইরাসের সময় হয়তো আরও কিছু প্লাটফরম এসেছে। বিশ্বে অনেক বড় দেশে কিছু ফিল্ম আছে যেগুলো শুধু টেলিভিশনেই দেখানে হয়। সেগুলো কিন্তু ইউটিউবে পাওয়া যাবে না। সুতরাং ইউটিউব এবং টেলিভিশনের জায়গা আলাদা আদালাই থাকবে। টেলিভিশনের মান কমবে না।’

ইত্তেফাক/টিআর



Contact
reader@banginews.com

Bangi News app আপনাকে দিবে এক অভাবনীয় অভিজ্ঞতা যা আপনি কাগজের সংবাদপত্রে পাবেন না। আপনি শুধু খবর পড়বেন তাই নয়, আপনি পঞ্চ ইন্দ্রিয় দিয়ে উপভোগও করবেন। বিশ্বাস না হলে আজই ডাউনলোড করুন। এটি সম্পূর্ণ ফ্রি।

Follow @banginews